শবে বরাতের রোজা ২০২২ সালের কত তারিখে? শবে বরাতের রোজা কয়টি?

শবে বরাত কবে? শবে বরাতে রোজা কয়টি? শবে বরাতের রোজা কবে? শবে বরাতে রোজা রাখার নিয়ম? শবে বরাতের নামাজের নিয়ম কিভাবে?

আস্সালামু আলাইকুম । আশা করি সকলে ভালো আছেন । ২০২২ সালের রমজান মাস প্রায় এসে পড়েছে। কিন্তু অনেকে জানতে চান যে ২০২২ সালে শবে বরাত কত তারিখে? আবার অনেকের মনে শবে বরাত নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন জমে আছে । যেমন- শবে বরাতে দিনে নামাজ পড়বো নাকি রাতে? শবে বরাত এর নামাজ কিভাবে? শবে বরাতের নামাজের নিয়ম কি? শবে বরাতে নামাজ কত রাকাত পড়বো? ইত্যাদি। আজকে আপনাদের এসব প্রশ্নের উত্তর নিয়ে এসেছি। আজকে আমরা কথা বলবো শবে বরাতের সম্পর্কে।

শবে বরাত কবে?

রমজান মাসের আগে শাবান মাসে শবে বরাত হয়ে থাকে। শাবান মাসের  ১৫ তারিখে শবে বরাত হয়ে থাকে । বাংলাদেশের ধর্ম মন্ত্রণালয় জানিয়েছে মার্চ মাসের ১৮ তারিখে শবে বরাত হবে। এই দিনে মুসলিমগন আল্লাহর ইবাদতের মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করবে।

শবে বরাতের রোজা কবে?

শবে বরাত হলো একটি পবিত্র এবং মহিমান্বিত রাত। শাবান মাসের ১৫ তারিখে শবে বরাত পালিত হয়। এই বছর অর্থা্ৎ ২০২২ সালে শবে বরাত পালিত হবে মার্চ মাসের ১৮ তারিখে । এবং সরকারি বন্ধ ঘোষিত হয়েছে ১৯ তারিখ । আমাদের নবীজি এমনিতেই অনেক রোজা রাখতেন। কিন্তু শাবান মাসে আরও বেশি রোজা রাখেতেন। শাবান মাসের ১৩, ১৪, ১৫ তারিখে রোজা রাখার গুরুত্ব বেশি । এই সম্পর্কে

আলী বিন আবূ তালিব (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, যখন মধ্য শাবানের রাত আসে তখন তোমরা এ রাতে দাঁড়িয়ে সালাত পড় এবং এর দিনে সওম রাখ। কেননা এ দিন সূর্য অস্তমিত হওয়ার পর আল্লাহ পৃথিবীর নিকটতম আকাশে নেমে আসেন এবং বলেন, কে আছো আমার নিকট ক্ষমাপ্রার্থী, আমি তাকে ক্ষমা করবো। কে আছো রিযিকপ্রার্থী আমি তাকে রিযিক দান করবো। কে আছো রোগমুক্তি প্রার্থনাকারী, আমি তাকে নিরাময় দান করবো। কে আছ এই প্রার্থনাকারী। ফজরের সময় হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত (তিনি এভাবে আহবান করেন)।

অর্থাৎ এ থেকে বোঝা যায় শাবান মাসের মধ্য সময় অর্থাৎ শবে বরাতে রোজা রাখা কতটা ফজিলত র্পূণ। আমরা সকলেই চেষ্টা করবো এই সময়ের রোজা গুলো পালন করার জন্য।

শবে বরাতের রোজা কয়টি?

www.webresultbd.com

শবে বরাতে নবীজি বেশি রোজা রাখতেন। তিনি আমাদের এই মাসে বেশি বেশি রোজা রাখার কথা বলেছেন। কারণ এই মাস খুবই ফজিলত সম্পন্ন। এই মাসের ১৩, ১৪, ১৫ তারিখে রোজা রাখার গুরুত্ব অনেক। তাই আমরা চেষ্টা করবো শাবান মাসের ১৩, ১৪, ১৫ তারিখের রোজা রাখার জন্য ।

শবে বরাতের বিশেষ নামাজ আছে কি?

আমাদের মাঝে অনেকের মনে প্রশ্ন আছে যে শবে বরাতের বিশেষ নামাজ কি?শবে বরাতের দিন আমরা যে নামাজ পড়বো তা হলো নফল নামাজ। এই দিনের অর্থাৎ শবে বরাতের নফল নামাজ আর অন্যান্য দিনের নফল নামাজ এর মাঝে কোনো পার্থক্য নেই। অন্যান্য দিনে যেভাবে নফল নামাজ আদায় করবো শবে বরাতেও একই নিয়মে নফল নামাজ আদায় করবো। এই ক্ষেত্রে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী ৮/১০/১৬/২০ রাকাত বা চাইলে এর বেশি ও পড়তে পারেন। কিন্তু নামাজের নিয়ম একই থাকবে। নিয়ম কোনোভাবে বদলাবে না।

ঢাকা জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী

নারায়ণগঞ্জ জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী

শবে বরাত সম্পর্কে কিছু ভ্রান্তি

আমরা সকলেই শবে বরাত পালন করি। কেউ বেশি ইবাদত করেন কেউ কম ইবাদত করেন। কিন্তু অনেকের মাঝে কিছু ভুল ধারণা রয়েছে। যেমন- শবে বরাতের নামাজের নিয়ম আলাদা, শবে বরাতের নফল নামাজ আলাদা, শবে বরাতে শবে কদরের মতো ইত্যাদি।

এরকম ধারণা সর্ম্পূণ ভুল। শবে কদর খুবই মহিমান্বিত রাত। তবে এ রাতের আলাদা কোনো নামাজের নিয়ম নেই। এই দিনে নফল নামাজ আদায় করতে হয়। অন্যান্য দিনের নিয়ম অনুযায়ী ই এই দিনে নফল নামাজ আদায় করতে হবে। আবার অনেকে ফরজ নামাজ আদায় না করে শবে কদরের রাতে সারা রাত নফল নামাজ আদায় করেন। এটা সর্ম্পূণ ভুল। আগে ফরজ নামাজ আদায় করতে হবে তারপর নফল নামাজ আদায় করতে হবে। বিভিন্ন জাল নামাজ শিক্ষা বই ও বানোয়াট মিথ্যা ও জাল বইগুলোতে শবে বরাতের ভৃল নামাজের নিয়ম দেওয়া থাকে এগুলো সবই তাদের মনগড়া বক্তব্য। কোনো নফল নামাজের ক্ষেত্রেই এরকম বিশেষ কোনো নিয়ম নাই।

আশা করি আমার লেখা থেকে আপনারা উপকৃত হবেন।

রমজান সম্পর্কে যে কোনো খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইট webresultbd.com আসুন।